বিয়ানীবাজার পৌরসভা প্রথম শ্রেণীতে উন্নীত                 প্রতিক্রিয়াশীল রাজনীতির শেকঁড় উদঘাটন করেছেন আউয়াল                 নেইমারের গোলে ম্যানইউকে হারালো বার্সা                 পূর্ব লন্ডনে ‘এসিড হামলার’ আহত দুই বাংলাদেশি                 বিয়ানীবাজারে স্কুল ছাত্রীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার                 বিয়ানীবাজারে এক ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে দুদকে অভিযোগ                 সিলেট শিক্ষাবোর্ড চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে অপপ্রচারে সুশীল সমাজের ক্ষুব্দ প্রতিক্রিয়া                
সর্বশেষ:

সব কাজের কাজি!

: বিয়ানীবাজার কন্ঠ
Published: 20 03 2017     Monday   ||   Updated: 20 03 2017     Monday
সব কাজের কাজি!

স্টাফ রিপোর্টার::
তিনি বিয়ে পড়ান। শিক্ষকতা করেন। বাল্য বিয়ে পড়ানোর ক্ষেত্রে ঝুঁকি নেন। এক ইউনিয়নের বাসিন্দা হয়ে পৌর এলাকার কাজি পদে নিয়োগ পান। সব ‘ম্যানেজ’ করতে পারেন তিনি। আব্দুর রহমান হেলাল নামের ওই ব্যক্তি ‘সব কাজের কাজি’। তিনি হুলারামচক গ্রামের মৃত আব্দুর রউফের ছেলে।
অভিযোগ রয়েছে, আব্দুর রহমান হেলাল বড়লেখা উপজেলার ছিদ্দেক আলী উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী মৌলভী পদে শিক্ষকতার পাশাপাশি নিয়ম বহির্ভূতভাবে নিকাহ রেজিষ্ট্রার (কাজি) পদে নিয়োগ পেয়েছেন। তাকে ২০০২ সালে বড়লেখা পৌরসভার ৫, ৬ ও ৭নং ওয়ার্ডের কাজি হিসেবে নিয়োগ করে আইন বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রনালয়। নিয়োগের সময় তিনি শিক্ষকতা পেশায় নিয়োজিত থাকার বিষয়টি গোপন রাখেন। তাকে নিয়ে এলাকায় দাঙ্গা-ফ্যাসাদ কম হচ্ছেনা। বাল্য বিয়ে পড়িয়ে বিপুল টাকা-পয়সা আয় করেন। অধিকহারে বাল্য বিয়ে পড়ানোর কারণে এলাকায় তাকে ‘শিশুকাজি’ বলে ডাকা হয়। ক্লাশরুমে ইসলাম শিক্ষা পড়ানোর সময় বাল্য বিয়ের সুফল নিয়ে আলোচনা করেন তিনি।
অভিযোগ থেকে জানা যায়, ২০১৪ সালের ৩১ মে বড়লেখার সানাই কমিউনিটি সেন্টারে নিবন্ধন হওয়া একটি বিয়ের কাবিননামায় কনের জন্ম তারিখ ১০ ফেব্রুয়ারী ১৯৯৬ লেখা হয়। অথচ বিদ্যালয়ের সনদ অনুযায়ী ওই কনের জন্ম তারিখ ১১ ডিসেম্বর ১৯৯৬ ইংরেজী। ওই বিয়েটি ভেঙ্গে যাওয়ায় তা আদালত পর্যন্ত গড়ায়। মামলার স্বার্থে আদালতে দাখিল করা কাবিননামায় ভিন্ন আরেক তারিখ লিখা হয়। এ নিয়ে বড়লেখা জুড়ে তোলপাড় চলছে। এ বিয়ের নিবন্ধক (কাজি) ছিলেন আব্দুর রহমান হেলাল। মূলত তিনি ব্যাপক অনিয়মের আশ্রয় নিয়ে যেমন ইচ্ছে তেমন লিখছেন কাবিননামায়-এমন অভিযোগ করেছেন বিয়ের স্বাক্ষী শুয়াইবুর রহমান।
অভিযোগ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে আব্দুর রহমান হেলাল জানান, তিনি নিয়ম মেনে নিয়োগ পেয়েছেন। দু’টি পদে চাকুরী কোন নিয়মের মধ্যে পড়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, এটা মন্ত্রনালয়ে গিয়ে অভিযোগ করেন। অবশ্য তার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রের অভিযোগ করেছেন তিনি।

Share Button
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •   
  •   
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  



Share Button
July 2017
S S M T W T F
« Jun    
1234567
891011121314
15161718192021
22232425262728
293031  

devolop web-it-home, 2017