বড়লেখায় ১ লাখ মিটার অবৈধ কারেন্ট জাল উদ্ধার                 বিয়ানীবাজারে ছাত্রলীগ কারা চালায় কিভাবে চলে ? দুই বছরে ৪৩ সংঘর্ষ, ৪৭টি মামলা, ২ খুন                 গোলাপগ‌ঞ্জে গ্যাস সং‌যো‌গের দাবী‌তে মানববন্ধন                 নিহত লিটুর বাড়িতে আওয়ামীলীগ নেতা পল্লব                 রোমান্টিক দম্পতি তাহসান-মিথিলার বিচ্ছেদ                 বিয়ানীবাজার স্বাদে বিক্রি হচ্ছে ভেজাল খাদ্য                 বিয়ানীবাজার পৌরসভায় ত্রাণ বিতরণের উদ্বোধন করলেন জেলা প্রশাসক                

লিবিয়া উপকুলে বিয়ানীবাজারের ২শ’ যুবকের ইটালী যাওয়ার প্রস্তুতি

: বিয়ানীবাজার কন্ঠ
Published: 30 03 2017     Thursday   ||   Updated: 30 03 2017     Thursday
লিবিয়া উপকুলে বিয়ানীবাজারের ২শ’ যুবকের ইটালী যাওয়ার প্রস্তুতি

মিলাদ জয়নুল:

লিবিয়া থেকে ইটালী যাওয়ার পথে বিয়ানীবাজারের দুই যুবক নিহত হয়েছে। নিহতদের পরিবারের সদস্যরা বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তারা প্রায় দু’মাস পূর্বে চট্রগাম বিমানবন্দর হয়ে লিবিয়া পৌছান। এদের একজনের নাম ইমরান হোসেন (২৬)। সে পৌরশহরের খাসা গ্রামের লাল মিয়ার ছেলে। অপরজন শ্রীধরা গ্রামের খলিলুর রহমানের ছেলে ফরিদুল আলম (২৫)।
সূত্র জানায়, বিয়ানীবাজার উপজেলার প্রায় দুই শতাধিক যুবক বর্তমানে লিবিয়ার উপকুলে আশ্রয় নিয়েছে। তারা সময় সুযোগ বুঝে ইটালীতে পাড়ি জমাতে চায়। চট্রগাম বিমানবন্দর দিয়ে আদম ব্যবসায়ীরা তাদের লিবিয়ায় পাঠায়।
ইমরানের পিতা লাল মিয়া জানান, ছয়লাখ টাকা চুক্তিতে ইমরান হোসেনকে লিবিয়ায় পাঠানো হয়। প্রায় মাসখানেক পূর্বে আদম ব্যবসায়ী আব্দুল হাদীর মাধ্যমে তার ছেলে লিবিয়ায় পৌছে। সেখান থেকে আরো সাড়ে ৩লাখ টাকা চুক্তিতে তাকে ইটালীতে পৌছানোর কথা। চুক্তি অনুযায়ী গত সপ্তাহে ইমরান, ফরিদুলসহ আরো কয়েকজন সাগরপথে ইটালীর উদ্দেশ্যে রওয়ানা দেন। কিন্তু ভূমধ্য সাগরে তাদের ‘রিসিভ’ করা নিয়ে দু’পক্ষের সংঘর্ষ হয়। এ সংঘর্ষে গুলাগুলির সময় গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা যান ইমরান ও ফরিদুল। তাদের সাথে বিয়ানীবাজার এলাকার আরো কয়েকজন যুবক ছিল বলে জানান লাল মিয়া। লিবিয়া থেকে ইটালী যাওয়ার অপেক্ষায় থাকা স্থানীয় যুবকদের মাধ্যমে তারা এ তথ্য পেয়েছেন বলে। এ সংঘর্ষে নিহত হওয়ার সংবাদটি লিবিয়ার সংবাদমাধ্যমে বেশ গুরুত্ব সহকারে প্রকাশিত হয়েছে বলে জানান ইমরানের চাচাতো ভাই জাকারিয়া আহমদ।
এদিকে সরজমিন ইমরান ও ফরিদুলের বাড়িতে গিয়ে দেখা যায়, দু’পরিবারের চলছে শোকের মাতম। সাগরে তাদের মরদেহ ভেসে গেছে বলে বিলাপ করে ফরিদুলের পিতা খলিলুর রহমান জানান, লাশ পাওয়া যায়নি। লিবিয়া থেকে তাদের গ্রামের ছেলে জিয়াউর রহমান এমন তথ্য জানিয়েছেন বলে তিনি উল্লেখ করেন। ইউরোপ যাওয়ার ট্রানজিট রুট লিবিয়ার পথ ধরেছে হাজারো তরুণ। স্বপ্নের ভূবনের হাতছানিতে মুগ্ধ হয়ে এসব তরুণ বাড়ি ছেড়েছে। তাদের কেউ আছে ঢাকা-চট্রগামে আবার কেউ আছে লিবিয়ার অদূরে। বিদেশগামী তরুণদের কিছুসংখ্যক লিবিয়া পাড়ি জমানোর জন্য ‘থার্ডকান্ট্রি’তে অবস্থান করছে। তাদের কারো বাড়িতে চলছে কান্নার রোল, কারো বাড়িতে খুশির জোয়ার। তারা সবাই ইউরোপে যেতে চায়। যেখানে আছে মোটা টাকা, ইউরো।
প্রবাসী অধ্যুষিত বিয়ানীবাজার উপজেলার মানুষ যেকোন উপায়ে ইউরোপে পাড়ি জমাতে চায়। এখানকার তরুণরা বিদেশ যেতে আরো বেশী আগ্রহী। গত ক’বছর বাংলাদেশ থেকে প্রবাস গমণের হার মাত্রাতিরিক্ত কমে যাওয়ায় উপজেলার তরুণরা এমনিতেই হতাশ ছিল। তাছাড়া দু’একটি দেশ ছাড়া মধ্যপ্রাচ্যের ভিসা প্রায় বন্ধ থাকায় বিয়ানীবাজারের তরুণদের মধ্যে বেকারত্ম অনেকটা বেড়ে যায়। এসব দিক বিবেচনায় ক’মাস থেকে লিবিয়া হয়ে ইউরোপে পাড়ি জমাচ্ছে হাজারো তরুণ। গত ৬ মাসে বিয়ানীবাজারের অন্তত: ৩ শতাধিক যুবক এ দেশের ট্রানজিট রুট ব্যবহার করে ইটালী, ফ্রান্স, স্পেন, পর্তুগাল পাড়ি জমিয়েছে। একটি সূত্র জানায়, তাদের যাত্রা শুরু হয় চট্রগাম আমানত শাহ বিমানবন্দর থেকে। সেখানকার একটি সিন্ডিকেটের মাধ্যমে মূলত তাদের বিমানে ওঠানো হয়। আইনশৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনী এ সিন্ডিকেটের সদস্যদের ব্যাপারে কঠোর অবস্থানে রয়েছে। যদিও কিছুতেই থামানো যাচ্ছেনা লিবিয়াগামী তরুণদের মিছিল।

Share Button
Spread the love
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •   
  •   
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  



Share Button
July 2017
S S M T W T F
« Jun    
1234567
891011121314
15161718192021
22232425262728
293031  

devolop web-it-home, 2017